Responsive image

সামগ্রিক বিষয়ের আলোকে কোম্পানির পারফরম্যান্স মূল্যায়নের আহ্বান রবির সিইওর

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিনিয়োগবার্তা: শুধু লভ্যাংশ নয়, সামগ্রিক বিষয়ের আলোকে কোম্পানির পারফরম্যান্স মূল্যায়নের আহ্বান জানিয়েছেন পুঁজিবাজারে সদ্য তালিকাভুক্ত রবি আজিয়াটা লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাহতাব উদ্দিন আহমেদ।

তিনি বলেন, একটি কোম্পানির পারফরম্যান্স মূল্যায়নের অনেকগুলো অনুষঙ্গ আছে। সেগুলো বাদ দিয়ে শুধু লভ্যাংশ সংক্রান্ত বিষয় দিয়ে যারা কোম্পানির পারফরম্যান্স বিবেচনা করেন, তারা ভাল বিনিয়োগকারী (Good Investor) নন।

মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

গত ৩১ ডিসেম্বর, ২০২০ তারিখে সমাপ্ত হিসাববছরের আর্থিক প্রতিবেদন তুলে ধরার জন্য এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে রবি আজিয়াটা।

আগের দিন (১৫ ফেব্রুয়ারি, সোমবার) রবির পরিচালনা পর্ষদ সভায় ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখে সমাপ্ত বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুমোদন করার পর বিনিয়োগকারীদেরকে কোনো ডিভিডেন্ড না দেওয়ার (No Dividend) সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তালিকাভুক্তির প্রথম বছরেই ডিভিডেন্ড না দেওয়ার এ সিদ্ধান্তে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে তীব্র হতাশার সৃষ্টি করে। আর এ জন্য খোঁদ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি কোম্পানির শীর্ষ কর্মকর্তাদের ডেকে পাঠায়। অন্যদিকে বাজারে শেয়ারটির দাম কমে সার্কিটব্রেকার স্পর্শ করে।

বিনিয়োগকারীদের ডিভিডেন্ড না দেওয়ার বিষয়ে রবির সিইও বলেন, কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ সদস্যরা ডিভিডেন্ড দেওয়ার বিপক্ষে ছিলেন এমন নয়। কিন্তু বেশ কয়েকটি বিষয় বিবেচনা করে শেষ পর্যন্ত ডিভিডেন্ডনা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

তিনি বলেন, সর্বশেষ বছরে (২০২০) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় ছিল ৩৩ পয়সা। এর পুরোটা ডিভিডেন্ড হিসেবে দিয়ে দিলেও হয়তো বিনিয়োগকারীরা সন্তুষ্ট হতেন না।

অনেক কোম্পানি আয় কম হলে উদ্যোক্তাদের (Sponsor) বাদ দিয়ে শুধু সাধারণ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ডিভিডেন্ড ঘোষণা করে। শুধু সাধারণ শেয়ারহোল্ডারদেরকে ডিভিডেন্ড দিলে এই আয় দিয়েও ১০ শতাংশ লভ্যাংশ দেওয়া যেতো, এমন প্রশ্নের জবাবে রবির সিইও বলেন, পুরনো বিনিয়োগকারীদের বাদ দিয়ে তুন বিনিয়োগারীদের ডিভিডেন্ড দেওয়া কোনো যৌক্তিক বিষয় হতে পারে না। তাছাড়া সুশাসন আছে, এমন কোনো কোম্পানি এই ধরনের বিষয় চর্চা করতে পারে না।

তিনি বলেন, অবন্টিত মুনাফা বিনিয়োগ করে আগামীতে শেয়ারহোল্ডারদের ভাল রিটার্ন দেওয়ার বিষয়ে পরিচালনা পর্ষদ গুরুত্ব দিয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, করোনা মহামারী সত্ত্বেও ২০১৯ সালের তুলনায় ২০২০ সালে রবির রাজস্ব বৃদ্ধির হার ১ দশমিক ১ শতাংশ। চতুর্থ প্রান্তিকে ১ হাজার ৯২০ কোটি টাকাসহ এ বছর রবির মোট আয় ৭ হাজার ৫৬৪ কোটি টাকা। এই প্রান্তিকের ৩৯ কোটি টাকাসহ ২০২০ সালে রবির কর পরবর্তী মুনাফার পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১৫৫ কোটি টাকায়। আগের বছরের নামমাত্র মুনাফার পর এ অর্জন আশাব্যঞ্জক।

তবে প্রবৃদ্ধির গতিতে প্রতিবন্ধক হিসেবে কাজ করেছে মোট আয়ের ওপর নূন্যতম ২ শতাংশ কর। অন্যদিকে উল্লেখযোগ্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে একমাত্র রবিই কোন প্রণোদনা ছাড়া পুঁজিবাজারে প্রবেশ করেছে। তাই ২০২০ সালে কার্যকর করের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৭১ দশমিক ৮ শতাংশ।

(এসএএম/১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১)

 

Short URL: https://biniyougbarta.com/?p=137680

সর্বশেষ খবর