ICJ

অবিলম্বে রাফায় অভিযান বন্ধের নির্দেশ

ডেস্ক রিপোর্ট: ফিলিস্তিনের গাজার রাফা এলাকায় অবিলম্বে অভিযান বন্ধ করতে ইসরায়েলকে নির্দেশ দিয়েছেন আন্তর্জাতিক বিচার আদালত (আইসিজে)। একইসঙ্গে গাজায় পর্যাপ্ত ত্রাণ প্রবেশ নিশ্চিত করতে উপত্যকাটির দক্ষিণের রাফা ক্রসিং খুলে দিতে ইসরায়েলকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া গাজায় তদন্তকারীদের অবাধ প্রবেশে বাধা না দেওয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন আইসিজে।

এসব নির্দেশনা পালনের অগ্রগতির বিষয়ে এক মাসের মধ্যে আইসিজেতে ইসরায়েলকে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

শুক্রবার (২৪ মে) নেদারল্যান্ডের দ্যা হেগ শহরে অবস্থিত আইসিজে এ আদেশ দিয়েছেন।

খবর: আল-জাজিরা।

তবে আজ ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হতে পারে মর্মে ব্যাপক আলোচনা থাকলেও আইসিজে কোনো পরোয়ানা জারি করেনি। তবে সন্দেহ করা হয়, ইসরায়েলি লবির তৎপরতা ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আপত্তির কারণে বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়া হয়েছে।

আইসিজের নির্দেশ অনুসারে, রাফায় ইসরায়েলের অভিযান বন্ধের সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। যদিও জাতিসংঘের সর্বোচ্চ এই আদালতের আদেশ মেনে চলার আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে সদস্যদেশগুলোর। তবে আদেশ প্রতিপালনে বাধ্য করার জন্য প্রয়োজনীয় জনবল এই আদালতের নেই।

নেদারল্যান্ডসের দ্য হেগ শহরে অবস্থিত আইসিজের কার্যালয়ে আজ শুক্রবার স্থানীয় সময় বেলা তিনটায় (বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাতটা) নির্দেশনাগুলো পড়ে শোনান আদালতের প্রেসিডেন্ট নাওয়াফ সালাম। ১০ মে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে দক্ষিণ আফ্রিকার করা একটি আবেদনের ওপর শুনানি নিয়ে এসব নির্দেশনা দিয়েছেন আদালত। ওই আবেদনে রাফায় ইসরায়েলের অভিযান বন্ধে জরুরি ভিত্তিতে পদক্ষেপ নিতে এ আদালতের কাছে আরজি জানিয়েছিল দেশটি।
দক্ষিণের আফ্রিকার ওই আবেদনের ওপর আইসিজেতে ১৭ ও ১৮ মে শুনানি হয়। এরপরই এসব নির্দেশনা দিলেন আদালত। গাজার অবস্থা ‘বিপর্যয়কর’ উল্লেখ করে নির্দেশনায় বিচারপতি নাওয়াফ সালাম বলেন, ইসরায়েলকে অবশ্যই অবিলম্বে রাফায় সামরিক অভিযান বা ফিলিস্তিনিদের জীবনের জন্য হুমকিস্বরূপ অন্য যেকোনো ধরনের কর্মকাণ্ড বন্ধ করতে হবে। এসব কর্মকাণ্ড গাজার ফিলিস্তিনিদের দুর্দশা বাড়িয়ে তুলতে পারে। একই সঙ্গে ইসরায়েলের এমন কোনো পদক্ষেপে গাজার অবকাঠামো পুরোপুরি বা আংশিক ধ্বংস হয়ে যেতে পারে।

বিনিয়োগবার্তা/এসএএম//


Comment As:

Comment (0)