Education Minister Kowmi Madrasa Cchatra League

কওমি মাদরাসায় ছাত্রলীগের কমিটি করার পরামর্শ শিক্ষামন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশের কওমি মাদরাসাগুলোতে ছাত্রলীগকে সাংগঠনিক কার্যক্রম শুরু করার নির্দেশনা দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। একই সঙ্গে দেশের সব প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠনগুলোকেও কওমি মাদরাসায় সাংগঠনিক কার্যক্রম করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

প্রয়োজনে কওমি মাদরাসার শিক্ষার্থীদের কাউন্সেলিং করাতে একটি সেল গঠন করে তাতে ছাত্রলীগ ও প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠনগুলোকে রাখার আহ্বানও জানান শিক্ষামন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) রাজধানীর বকশিবাজারে সরকারি আলেয়া মাদরাসায় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগ আয়োজিত বৃক্ষরোপণ ও পরিচ্ছন্নতা কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, কিছু কিছু রাজনৈতিক দল এরই মধ্যে কওমি মাদরাসাগুলোতে তাদের ছাত্রসংগঠনের কার্যক্রম চালাচ্ছে। একটি রাজনৈতিক দল পরিপূর্ণভাবে রাজনৈতিক কার্যক্রমের পাশাপাশি ছাত্রসংগঠন নিয়েও কাজ করছে। ছাত্রলীগের নেতাদের বিশেষভাবে বলবো-কওমি মাদরাসার সন্তানরাও আমাদের সন্তান, তারাও এ দেশের নাগরিক। রাজনৈতিকভাবে মতাদর্শের দিক থেকে তারা দেশের সংবিধান ও মুক্তিযুদ্ধর চেতনা থেকে যাতে বিচ্যুত না হয়, তাই কাউন্সিলিং করার জন্য বিশেষ সেল গঠন করা উচিত।

মন্ত্রী বলেন, আমাদের অনেক প্রগতিশীল ছাত্রসংগঠন আছে। তারাও যাতে কওমি মাদরাসায় বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, স্বাধীনতার অনুপ্রেরণা, সংবিধানে যে চার মূলনীতি সেগুলোর বিষয়ে তাদের কাউন্সিলিং করান। দেশপ্রেম দেশের প্রতি আনুগত্য এবং সমাজে ধর্মনিরপেক্ষ একটি অসাম্প্রদায়িক সমাজ তৈরির কাজে অবশ্যই তাদের আনতে এবং তারা যেন বিচ্যুত না হয় অপপ্রচারকারীদের মাধ্যমে।

তিনি আরও বলেন, কওমি মাদরাসায়ও ছাত্রসংগঠনগুলো যদি সুশৃঙ্খলভাবে, সৃষ্টিশীলভাবে তাদের কার্যক্রমগুলো করে তাহলে মনে হয় এটা সবার জন্য ভালো ফল বয়ে আনবে। নয়তো একটি বিশাল জনগোষ্ঠীকে ব্রেইনওয়াশ করে সরকারের বিরুদ্ধে, রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে জনগণের বিরুদ্ধে, সমাজের বিরুদ্ধে, সংস্কৃতির বিরদ্ধে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

‘এখানে-ওখানে গিয়ে নানাভাবে তাদের মোটিভেট করা হয়, উৎসাহিত করা হয়, সেগুলো আমাদের মাথায় রাখতে হবে। সেজন্য অবশ্যই একটি বিশেষ সেল গঠন করুন। আপনারা তাদের সঙ্গে বসেন, তাদের নিয়ে একটি বিশেষ সেল করেন। কীভাবে তাদের ওরিয়েন্টশন করানো যায়, সেটা আমাদের জন্য ভালো হবে’ বলেও যোগ করেন মহিবুল হাসান চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাদ্দাম হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনান, ঢাকা সরকারি আলিয়া মাদরাসার অধ্যক্ষ প্রফেসর মুহাম্মাদ আবদুর রশীদ।

এতে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি রাজিবুল ইসলাম বাপ্পি। সঞ্চালনায় ছিলেন মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সজল কুন্ডু প্রমুখ।

বিনিয়োগবার্তা/ডিএফই//


Comment As:

Comment (0)