Responsive image

কিংবদন্তী নায়িকা কবরী আর নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিনিয়োগবার্তা: কোভিড-১৯-এর সংক্রমণে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তী অভিনেত্রী সারাহ বেগম কবরী (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজেউন)।

শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টা ১০ মিনিটে রাজধানীর শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকাওল তার বয়স হয়েছিল ৭০ বছর।

কবরীর পরিবারের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

জানা গেছে, গত ৫ এপ্রিল কবরীর প্রথম কোভিড-১৯-এর সংক্রমণ ধরা পড়ে। ওই রাতেই তাকে ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। দুদিন পর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে আইসিইউতে নেয়ার পরামর্শ দেন চিকিৎসকেরা। ৮ এপ্রিল দুপুরে শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালের আইসিইউতে তাকে নিয়ে যাওয়া হয়। পরিস্থিতির আরো অবনতি হলে বৃহস্পতিবার বিকেলে তাকে লাইফ সাপোর্ট নেয়া হয়। আর সেখানেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

বাংলাদেশে চলচ্চিত্রের ইতিহাসের সঙ্গে কবরীর নাম ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে রয়েছে। ভক্তদের কাছে তার পরিচিতি ছিল ‘বাংলা চলচ্চিত্রের মিষ্টি মেয়ে’ হিসেবে। ১৯৬৪ সালে সুভাষ দত্তের ‘সুতরাং’  অভিষেক হয় তার। স্বাধীনতার আগে জলছবি, বাহানা, সাত ভাই চম্পা, আবির্ভাব, বাঁশরি, যে আগুনে পুড়ি, দীপ নেভে নাই, দর্পচূর্ণ, ক খ গ ঘ ঙ, বিনিময় ইত্যাদি দর্শকনন্দিত বাংলা সিনেমায় অভিনয় করেন তিনি। মুক্তিযুদ্ধের সময় কলকাতায় বাংলাদেশের স্বাধীনতার সপক্ষে জনমত তৈরিতে তিনি ভূমিকা রাখেন। স্বাধীনতার পর অভিনয় করেছেন শতাধিক সিনেমায়। এর মধ্যে তিতাস একটি নদীর নাম, রংবাজ, সুজন সখী, আগন্তুক, নীল আকাশের নিচে, ময়নামতি, সারেং বৌ, দেবদাস, ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।

২০০৫ সালে আয়না চলচ্চিত্রের মাধ্যমে পরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন কবরী। তখন থেকে সরব হয়েছেন রাজনীতিতেও। ২০০৮ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে এমপি নির্বাচিত হন তিনি।

কবরীর জন্ম ১৯৫০ সালের ১৯ জুলাই চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে। চলচ্চিত্রে পা রাখার আগে তার পারিবারিক নাম ছিল মিনা পাল।

এদিকে কিংবদন্তি চলচ্চিত্র অভিনেত্রী সারাহ বেগম কবরীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এক শোকবার্তায় রাষ্ট্রপতি বলেন,কবরী ছিলেন বাংলা চলচ্চিত্রের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। তার মৃত্যু দেশের চলচ্চিত্র অঙ্গনের জন্য এক অপূরণীয় ক্ষতি। বাংলা চলচ্চিত্রের বিকাশে তার অবদান মানুষ আজীবন শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবে।

এ সময় রাষ্ট্রপতি সারাহ বেগম কবরীর রুহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোক-সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

পৃথক আরেক শোকবার্তায় গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, এদেশের চলচ্চিত্রে কবরী এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। অভিনয়ের পাশাপাশি রাজনীতি ও সংস্কৃতি অঙ্গনে তার অবদান স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী মরহুমার আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন ও তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

এছাড়া তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী, ডিএসসিসির মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস, সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ প্রমুখ বাংলা চলচ্চিত্রের এ কিংবদন্তীর প্রয়াণে শোক প্রকাশ করেছেন।

(এসএএম/১৫ এপ্রিল ২০২১)

Short URL: https://biniyougbarta.com/?p=142304

সর্বশেষ খবর