Responsive image

পুরনো ফোনের গতি বাড়াতে যা করবেন

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিনিয়োগবার্তা: স্মার্টফোন পুরনো হয়ে গেলে কার্যক্ষমতা ও গতি কমে যায়। ফোনের গতি কমে গেলেই তা বদলে ফেলতে হবে এমন ধারণা ভুল। কিছু কৌশল অবলম্বন করলে পুরনো স্মার্টফোনেও দ্রুত কার্যসম্পাদন করা যাবে। এমন কয়েকটি কৌশল নিম্নরুপ—

অপারেটিং সিস্টেম হালনাগাদ
স্মার্টফোনের কার্যক্ষমতা অনেকটা অপারেটিং সিস্টেমের ওপর নির্ভর করে। কাজেই নতুন সংস্করণ আসার সঙ্গে সঙ্গেই অপারেটিং সিস্টেম হালনাগাদ করে নিতে হবে। এতে ফোনের নিরাপত্তা ও গতি দুটোই বাড়বে। অপারেটিং সিস্টেমের পুরনো সংস্করণে নানা ধরনের বাগ বা ত্রুটি থাকে, যা ফোনের নিরাপত্তা দুর্বল করে এবং কার্যক্ষমতা কমিয়ে দেয়।

ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপ
বিভিন্ন অ্যাপকে স্মার্টফোনের প্রাণ বলা হয়। কিন্তু অপ্রয়োজনীয় অতিরিক্ত অ্যাপ স্মার্টফোনের গতি কমিয়ে দেয়। ব্যবহার না করলেও স্মার্টফোনে কিছু অ্যাপ সবসময় ব্যাকগ্রাউন্ডে চালু থাকে, যা কিছুক্ষণ পর পরই অটোরিফ্রেশ ও আপডেট হয়। এর মধ্যে ফেসবুকের মতো সোস্যাল মিডিয়ার অ্যাপগুলো উল্লেখযোগ্য। গতি বাড়াতে স্মার্টফোনের সেটিংস অপশন থেকে ব্যাকগ্রাউন্ডে সচল অপ্রয়োজনীয় অ্যাপগুলো বন্ধ করে দিতে হবে।

অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ
স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের মধ্যে অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ ইনস্টল করে রাখার প্রবণতা দেখা যায়। অসংখ্য অ্যাপ ইনস্টল করে রাখার কারণে ফোনের অভ্যন্তরীণ স্টোরেজ কমে যায় এবং র‌্যামের ওপর চাপ সৃষ্টি হয়। যে কারণে ফোনের কার্যক্ষমতা কমে যায়। অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ আনইনস্টল করে ফেলতে হবে।

লাইভ ওয়ালপেপার
স্মার্টফোনের ডিসপ্লে লাইভ ওয়ালপেপার সৌন্দর্য বাড়ায়। কিন্তু লাইভ ওয়ালপেপার ফোনের গতি কমিয়ে দেয়। যথাসম্ভব লাইভ ওয়ালপেপার ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে হবে। এতে করে ফোনের ব্যাটারি দীর্ঘ সময় ব্যাকআপ দেবে।

অভ্যন্তরীণ স্টোরেজ
স্মার্টফোনের অভ্যন্তরীণ স্টোরেজ ফাঁকা থাকলে দ্রুত গতি পাওয়া যায়। এক্ষেত্রে ডাউনলোড করা অপ্রয়োজনীয় ফাইল, ব্রাউজারের হিস্ট্রি ও অনেকদিন আগের ছবি মুছে দেয়াই ভালো। প্রয়োজনে মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে অপ্রয়োজনীয় ফাইল বা ছবি সংরক্ষণ করা যেতে পারে।

অ্যাপের লাইট সংস্করণ
অনেক অ্যাপের এখন লাইট সংস্করণ পাওয়া যায়। ফেসবুক, টুইটার, মেসেঞ্জার ও প্রয়োজনীয় ব্রাউজারের লাইট সংস্করণ ব্যবহার করা যেতে পারে। বিভিন্ন জনপ্রিয় অ্যাপের লাইট সংস্করণ মূলত ফোনের গতির বিষয়টি মাথায় রেখেই ডিজাইন করা হয়। এতে ফোনের গতিও বাড়বে এবং ডাটা খরচ কমবে।

হোম স্ক্রিন
স্মার্টফোনে অনেকেই একাধিক ওয়াইগেট ব্যবহার করেন, যা ফোনের গতি কমিয়ে দিতে পারে। অনেক বেশি ওয়াইগেট হোমে থাকলে তা র‌্যামের ওপর চাপ ফেলে। এতে ফোনের গতি কমে যায়।

ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট
স্মার্টফোন পুরনো হয়ে গেলে এবং গতি একেবারেই কমে গেলে ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করে নেয়া যেতে পারে। তবে ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করার আগে অবশ্যই অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের সব ডাটার ব্যাকআপ রাখতে হবে। ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করলে ফোনের গতি বাড়বে।

(ডিএফই/০৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১)

Short URL: https://biniyougbarta.com/?p=136889

সর্বশেষ খবর