Responsive image

প্রকাশিত সংবাদ প্রসঙ্গে ইন্দো-বাংলার ব্যাখ্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিনিয়োগবার্তা: সম্প্রতি একটি অনলাইন নিউজপোর্টালে প্রকাশিত একটি সংবাদের ব্যাখ্যা দিয়েছে পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত কোম্পানি ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড।

বুধবার বিভিন্ন গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ ব্যাখ্যা দিয়েছে কোম্পানিটি।

এতে কোম্পানিটি জানায়, ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিউটিক্যালসের বর্তমান পরিচালনা পর্ষদের সুদক্ষ কর্ম পরিচালনার ফলে কোম্পানির অগ্রগতিতে ঈর্ষার্ন্বিত হয়ে কতিপয় কুচক্রি মহল কোম্পানির সুনাম বিনষ্ট ও ক্ষতি সাধনের অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। এরই অংশ হিসেবে গত ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ একটি অনলাইন নিউজপোর্টালে ‘ইন্দো-বাংলা ফার্মার বিরুদ্ধে অনুমোদনহীন ও নিষিদ্ধ ঔষধের প্যাকিং মেটারিয়াল জব্দের অভিযোগ’ শীর্ষক প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়।

কোম্পানিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এএফএম আনোয়ারুল হকের পক্ষে কোম্পানি সচিব মহিউদ্দিন স্বাক্ষরিত ব্যাখ্যায় বলা হয়েছে, শিরোনামসহ প্রতিবেদনটি উদ্দেশ্যমূলক, মনগড়া ও অন্যদ্ধারা প্রভাবিত। যাহা আমাদের জন্য অত্যন্ত অনভিপ্রেত ও বিব্রতকর।

রিপোর্টে উল্লেখিত ঔষধ প্রশাসন পরিদর্শনের সময় ৯টি অনুমোদনহীন ও ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর কর্তৃক নিষিদ্ধ প্রোডাক্টের প্যাকিং ম্যাটেরিয়ালস (কার্টুন লেবেল ফয়েল) কারখানার অভ্যন্তরে প্যাকিং সেন্টারে জব্দ করা হয় বলে যে রিপোর্ট করা হয়েছে তা সম্পূর্ন মিথ্যা ও বানোয়াট। কোয়ালিটি কন্ট্রোলে একটি আই এন এন প্রোডাক্টকে বিপি প্রোডাক্ট হিসেবে দেখানোর মতো গুরুতর অপরাধের কথা বলা হয়েছে- তা দ্ধারা তিনি কি বুঝিয়েছেন তা আমাদের বোধগম্য নয়। কোম্পানীটি পুঁজিবাজারে আসার আগে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) ইন্দো-বাংলার ফ্যাক্টরীতে ব্যাপক অনুমোদনহীন ও নিষিদ্ধ ঔষধ জব্দ করে বলে যে প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে, তার বিপরীতে বিজ্ঞ আদালত কোম্পানির পক্ষে রায় দিয়েছিল- তা এখানে উল্লেখ করা হয়নি। এতেই প্রমানিত হয় যে, প্রতিবেদনটি সম্পূর্ন উদ্দেশ্যপ্রনোদিত ও একপাক্ষিক।

ব্যাখ্যায় কোম্পানিটি জানায়, ঔষধ প্রশাসনের প্রচলিত নিয়মানুযায়ী এবং ঔষধ উৎপাদনে জিএমপি গাইডলাইন অনুসরন করে ও গুনগতমান ঠিক রেখে ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড ঔষধ উৎপাদন ও বাজারজাত করে আসছে। কিন্তু কিছু স্বার্থান্বেষী মহল ঈর্ষার্ন্বিত হয়ে কোম্পানীর ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করা এবং ব্যবসায়িক সুনাম বিনষ্ট করার অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়ে এরূপ মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ পরিবেশন করে আসছে-যারফলে কোম্পানির সুনাম নষ্ট হওয়ার সাথে কয়েক হাজার শেয়ারহোল্ডারের আর্থিক ক্ষতির আশংক্ষা রয়েছে।

ব্যাখায় কোম্পানিটি আরও জানায়, কারো দ্বারা প্রভাবিত হয়ে, কোন প্রকার খোঁজ-খবর না নিয়ে মনগড়া প্রতিবেদন পরিবেশন করা এবং একটি তদন্তাধীন বিষয়ে রিপোর্ট প্রকাশ সংবাদ প্রকাশ নীতিমালা ও পেশাদারিত্বের চরম অবমাননা বলে আমরা মনে করি। আর এরূপ প্রতিবেদনের ফলে কোনোপ্রকার ক্ষতির সম্মুক্ষীন হলে আইসিটি এ্যাক্টে মামলা করতে বাধ্য হবে বলেও কোম্পানিটি হুঁশিয়ারি দিয়েছে।

(ডিএফই/এসএইচআর/১০ ফেব্রুয়ারি ২০২১)

Short URL: https://biniyougbarta.com/?p=137250

সর্বশেষ খবর