Responsive image

‘সহস্র উদ্যোক্তা সম্মেলন’ করবে বিডা’র ইএসডিপি

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিনিয়োগবার্তা: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে ‘সহস্র উদ্যোক্তা সম্মেলন’ করবে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা)। আগামী ২০২১ সালের এপ্রিল মাসে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে চায় দেশে বিনিয়োগ ও বাণিজ্য নিয়ে কাজ করে আসা এই প্রতিষ্ঠানটি।

বিডা’র ‘উদ্যোক্তা সৃষ্টি ও দক্ষতা উন্নয়ন প্রকল্প (ইএসডিপি) এর আওতায় এ সম্মেলনটির আয়োজন করা হবে।

‘উদ্যোক্তা হব বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ব’- এই স্লোগানকে সামনে রেখে ভার্চুয়ালি এই কর্মসূচি পালন করবে সংস্থাটি।

বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা)’র নির্বাহী চেয়ারম্যান মোঃ সিরাজুল ইসলাম এ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করবেন।

জানা গেছে, সহস্র উদ্যোক্তাদের এই সম্মেলনে বিডা’র চেয়ারম্যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে প্রধান অতিথি হিসেবে রাখতে চেষ্ঠা করছে বিডা। এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে এ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর আইটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়কে রাখতে চায় বিডা। এছাড়া অনুষ্ঠানে মন্ত্রী, উপদেষ্টা, প্রতিমন্ত্রী, ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তারা, বেসরকারি খাতের প্রাজ্ঞ ব্যক্তিরা উপস্থিত থাকবেন।

সম্মেলনের ধারণা পত্রে বলা হয়, অফুরন্ত বিনিয়োগ উন্নয়ন ও সম্ভাবনার দেশ বাংলাদেশ। অমিত সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হওয়া এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত হওয়ার লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্য বেসরকারি

খাতে বিনিয়োগ বৃদ্ধি করা অপরিহার্য। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের গতিপথের গুরুত্বপূর্ণ অংশ শিক্ষিত বেকার তরুণ সমাজ। উদ্যোক্তা সৃষ্টির মাধ্যমে যুব-প্রজন্মকে উৎপাদনমুখী অর্থনৈতিক ধারায় সম্পৃক্ত করা সম্ভব হলে, বেসরকারি খাতে বিনিয়োগ বিকাশ ও প্রসারের ফলে অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি বেগবান হবে। সেলক্ষ্যে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) কর্তৃক “উদ্যোক্তা সৃষ্টি ও দক্ষতা উন্নয়ন” শীর্ষক প্রকল্পটি গ্রহণ করা হয়।

উল্লেখ্য, প্রকল্পটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ১০টি বিশেষ উদ্যোগের অন্যতম উদ্যোগ ‘বিনিয়োগ বিকাশ’ এবং সরকারের নির্বাচনি ইশতেহারের অন্যতম অঙ্গীকার “তারুণ্যের শক্তি, বাংলাদেশের সমৃদ্ধি”-এ প্রতীতির বাস্তব রূপায়ন। এ প্রকল্পের অধীনে উদ্যোক্তা প্রশিক্ষণ কার্যক্রম দেশের ৬৪ জেলায় চলমান। প্রশিক্ষণের মাধ্যমে প্রকল্প মেয়াদে সারাদেশ হতে বিনিয়োগে আগ্রহী ২৪০০০ শিক্ষিত যুব পুরুষ ও মহিলাদের প্রশিক্ষণ প্রদানের কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটি সুখী, সমৃদ্ধ, দারিদ্র্যমুক্ত ও উন্নত সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে আমৃত্যু কঠোর সংগ্রাম চালিয়েছেন। শিক্ষিত যুব সমাজ উদ্যোক্তা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে  বেসরকারি খাতে বিনিয়োগ বৃদ্ধির মাধ্যমে জাতির পিতার আজন্ম লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়নে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে সক্ষম। এক্ষেত্রে তাদের প্রয়োজন সঠিক দিক নির্দেশনা, উৎসাহ ও অর্থনীতির মূলধারার সাথে সম্পৃক্ত হওয়ার জন্য সময়োচিত সহায়তা। প্রকল্পের মাধ্যমে সৃষ্ট নবীন উদ্যোক্তাদের জাতির পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়নে উদ্বুদ্ধ ও প্রতিশ্রুতিবদ্ধ করার প্রয়াসে তাঁর জন্মশতবার্ষিকীতে ভার্চুয়ালি সহস্র উদ্যোক্তা সম্মেলন আয়োজনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

প্রকল্পের সার্বিক অর্জন সম্পর্কে ধারণাপত্রে উল্লেখ করা হয়, এ পর্যন্ত দেশব্যাপী ১৯২০০জন শিক্ষিত বেকার যুব পুরুষ ও মহিলাদের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়েছে, প্রশিক্ষণ প্রাপ্তদের মধ্যে ৩৪৪১ জন উদ্যোক্তা হিসেবে তাদের ব্যবসায়িক কার্যক্রম শুরু করেছে। আন্তর্জাতিক সমীক্ষা অনুযায়ী প্রশিক্ষণ পরবর্তী উদ্যোক্তা হওয়ার হার যেখানে ১%-২% সেখানে এ প্রকল্পের মাধ্যমে উদ্যোক্তা হওয়ার হার ১৯% ২০%, উদ্যোক্তা সৃষ্টি ও দক্ষতা উন্নয়ন প্রকল্পটি‘গ’শ্রেণির ক্ষুদ্র প্রকল্প, যরি ব্যয় ৫০ কোটি টাকারও নিচে। তা সত্ত্বেও এ প্রকল্পের উদ্যোক্তাগণ কর্তৃক বেসরকারি খাতে বিনিয়োগের পরিমাণ ৯৩১ কোটি টাকার অধিক, উদ্যোক্তাদের মাধ্যমে এ পর্যন্ত সারাদেশে ৩০৪১৭ জনের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হয়েছে।

সহস্র উদ্যোক্তা সম্মেলনের উদ্দেশ্যঃ

১। স্বাধীনতার স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকীতে সহস্র উদ্যোক্তা সম্মেলন ২০২

১ আয়োজনের মাধ্যমে জাতির পিতার সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় নবীন উদ্যোক্তাদের উৎসাহ প্রদান।

২। খাতভিত্তিক বৃহৎশিল্প প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি ও প্রকল্পের নবীন উদ্যোক্তাদের কার্যকর সংযোগ সাধনের মাধ্যমে পশ্চাদ ও সরবরাহ শিল্পের (suppliers and linkage industry) বিকাশ।

৩। সফল উদ্যোক্তা ও খাতভিত্তিক বিশেষজ্ঞদের সাথে নবীন উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগসংক্রান্ত অভিজ্ঞতা বিনিময়।

৪। বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সাথে নবীন উদ্যোক্তাদের সংযুক্তি স্থাপন এবং ঋণ প্রদান সম্পর্কিত প্রায়োগিক জ্ঞান বিনিময়।

৫। ভেঞ্চার ক্যাপিটাল প্রতিষ্ঠান এবং অ্যাঞ্জেল ইনভেস্টরগণের সাথে উদ্যোক্তাদের সংযুক্ত করে দেয়া।

৬। প্রকল্প হতে সৃষ্ট নবীন উদ্যোক্তাদের সনদ প্রদান।

৭। সম্মেলনের মাধ্যমে নবীন উদ্যোক্তাদের উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় সম্পৃক্ত করার মধ্য দিয়ে উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণ।

অংশগ্রহণকারী হবেন যারা:

উদ্যোক্তা সৃষ্টি ও দক্ষতা উন্নয়ন প্রকল্পের ৬৪ জেলা থেকে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত বাছাইকৃত ১০০০ জন উদ্যোক্তা এই সম্মেলনের অংশীজন হবেন। এছাড়া ৬৪ জেলার প্রশিক্ষণ সমন্বয়কবৃন্দ, উদ্যোক্তা সৃষ্টি ও দক্ষতা উন্নয়ন প্রকল্পের কর্মকর্তাগণ,  বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা)’র কর্মকর্তাগণ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকগণ, বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, খাতভিত্তিক অভিজ্ঞতা সম্পন্ন বৃহৎ শিল্প প্রতিষ্ঠানের ব্যবসায়িক প্রতিনিধিগণ, সফল উদ্যোক্তাগণ, সফল নারী উদ্যোক্তাগণ, বিভিন্ন চেম্বার অব কমার্স এর প্রতিনিধিগণ, ভেঞ্চার ক্যাপিটাল প্রতিষ্ঠান এবং অ্যাঞ্জেল ইনভেস্টরগণ।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের মে মাস থেকে শুরু হওয়া এ প্রকল্পের মাধ্যমে দেশব্যাপি হাজার হাজার উদ্যোক্তা তৈরি করছে বিডা। এতে নতুন উদ্যোক্তা ছাড়াও পুরোনো কিংবা স্বল্প আকারে চলমান উদ্যোক্তাদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ ও সহযোগিতার মাধ্যমে ব্যবসায়ের উন্নয়ন সাধন করাসহ এ সংক্রান্ত নানা কাজ করে আসছে প্রকল্পটি। চলমান কোভিড ১৯ সময়েও অনলাইনে প্রশিক্ষন কার্যক্রম চলমান রেখেছে ইএসডিপি। প্রশিক্ষণের মাধ্যমে প্রকল্প মেয়াদে সারাদেশ হতে বিনিয়োগে আগ্রহী ২৪০০০ শিক্ষিত যুব পুরুষ ও মহিলাদের প্রশিক্ষণ প্রদানের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। আর নির্ধারিত সময়ের আগেই এই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ সম্ভব বলে ধারণা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

(শামীম/২২ ডিসেম্বর ২০২০)

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

Short URL: https://biniyougbarta.com/?p=132712

সর্বশেষ খবর