Responsive image

বিটকয়েনে ১৫০ কোটি ডলার বিনিয়োগ করছে টেসলা

বিনিয়োগবার্তা ডেস্ক, ঢাকা: ক্রিপ্টোকারেন্সি বিটকয়েনে ১৫০ কোটি ডলার বিনিয়োগের ঘোষণা দিয়েছে টেসলা। বিনিয়োগের পাশাপাশি ক্রেতাদের কাছ থেকে বিটকয়েন গ্রহণ করবে বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা কোম্পানিটি। এতে গত সোমবার বিটকয়েনের মান রেকর্ড সর্বোচ্চে দাঁড়িয়েছে। খবর এএফপি।

কয়েক সপ্তাহ ধরেই টুইটারে বিটকয়েন নিয়ে লেখালেখি করছিলেন টেসলার প্রতিষ্ঠাতা ইলোন মাস্ক। এতে ক্রিপ্টোকারেন্সিতে তার বিনিয়োগের আভাস স্পষ্ট হয়ে উঠেছিল। মহামারী চলাকালেই অনেক ধনকুবের বিটকয়েনে বিনিয়োগ করেছেন। অনলাইন লেনদেনের পাইওনিয়ার মাস্ক কবে ক্রিপ্টোকারেন্সিতে বিনিয়োগ করবেন তার অপেক্ষায় ছিলেন খাতসংশ্লিষ্টরা।

চলতি বছরে বিটকয়েনের মূল্য প্রায় ৫০ শতাংশ বেড়েছে। তবে বিশ্লেষকরা বলছেন, এখনো বিটকয়েনের বাজার অস্থিতিশীল এবং তা অবৈধ খাতে ব্যবহারের ঝুঁকি রয়েছে বলে আশঙ্কা নীতিনির্ধারকদের।

করপোরেট খাতে নিয়মিত বিস্ময়জাগানিয়া কাজ করা মাস্ক অনেকটা ব্যতিক্রমভাবেই বিটকয়েনে বিনিয়োগের সংবাদ শেয়ার করেন। টুইটারে নিজের বায়োতে হ্যাশ ট্যাগ দিয়ে স্রেফ বিটকয়েন শব্দ লিখে দেন।

এদিকে কোম্পানি হিসেবে টেসলা এক বিবৃতিতে জানায়, কোম্পানির লিকুইডিটি বৃদ্ধি প্রয়াসের অংশ হিসেবে বিটকয়েন কেনা হচ্ছে।

১৫০ কোটি ডলার বিটকয়েন ক্রয়ের বিষয়টি স্বীকার করে টেসলা বলছে, বিনিয়োগে বৈচিত্র্য আনতে এবং সর্বোচ্চ মুনাফা নিশ্চিতে চলতি বছরের জানুয়ারিতে আমরা আমাদের বিনিয়োগ নীতি নমনীয় করার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিই।

টেসলার বৈদ্যুতিক গাড়ি ক্রয়ে ক্রেতারা যে এখন থেকে বিটকয়েন ব্যবহার করতে পারবে, সে বিষয়টিও নিশ্চিত করে সানফ্রান্সিসকোভিত্তিক কোম্পানিটি। সোমবার দিনের এক পর্যায়ে বিটকয়েনের মূল্য ৪৪ হাজার ৭৯৫ ডলারে দাঁড়ায়, যা রেকর্ড সর্বোচ্চ।

যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশে বিটকয়েন ব্যবহার স্বাভাবিকীকরণ প্রয়াসে টেসলার এ অংশগ্রহণ গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। গত অক্টোবরে পেপাল জানায়, তারা এখন থেকে তাদের গ্রাহকদের ক্রিপ্টোকারেন্সিতে লেনদেন করতে দেবে। এছাড়া বিটকয়েনে ৫ কোটি ডলার বিনিয়োগের ঘোষণা দেয় অন্য আর্থিক লেনদেনকারী কোম্পানি স্কয়ার। গত মাসে অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি ব্ল্যাকরক জানায়, তাদের দুটি তহবিলে বিটকয়েন বিনিয়োগ গ্রহণ করবে। তবে এ ক্রিপ্টোকারেন্সির অস্থিতিশীলতার কথা মাথায় রেখে সতর্ক মনোভাব ব্যক্ত করেছেন ব্ল্যাকরকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ল্যারি ফিংক।

যুক্তরাষ্ট্রের আর্থিক খাতের সর্বোচ্চ তদারকি সংস্থা সিকিউরিটিজ এক্সচেঞ্জ কমিশনের (এসইসি) কাছে পাঠানো নথিতে টেসলা এটা স্বীকার করেছে যে ক্রিপ্টোকারেন্সি এখনো কতটা অস্থিতিশীল। এছাড়া এটা যে প্রযুক্তিসংক্রান্ত ভয়াবহ হামলার মুখোমুখি হতে পারে, এ বিষয়ও স্বীকার করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের অর্থমন্ত্রী হিসেবে চূড়ান্ত নিয়োগের সময় সিনেট কনফারমেশন শুনানিতে জেনেট ইয়েলেন বলেন, ক্রিপ্টোকারেন্সিতে অবৈধ আর্থিক লেনদেনের সুযোগ রয়েছে।

১২ বছর বয়সী এ ক্রিপ্টোকারেন্সি গত বছর থেকে ফুলে-ফেঁপে উঠছে। ২০২০ সালের মার্চে এ মুদ্রার মূল্য ছিল মাত্র ৫ হাজার ডলার। বর্তমানে এটি ৪০ হাজার ডলারের আশপাশে থাকছে।

টেসলার বিটকয়েন ক্রয়টি ক্রিপ্টোকারেন্সির জন্য সবচেয়ে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন বিশ্লেষকরা। থিংকমার্কেটসের বিশ্লেষক ফাওয়াদ রাজাকজাদা বলেন, গাড়ি শিল্পে গুরুত্বপূর্ণ প্লেয়ার হিসেবে আবির্ভূত হচ্ছে টেসলা। তারা যদি ক্রেতাদের কাছ থেকে বিটকয়েন রাখা শুরু করে তাহলে ডিজিটাল মুদ্রা অনুমোদিত হওয়ার দৌড়ে অনেক এগিয়ে যাবে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও প্রযুক্তির দুনিয়ায় ইলোন মাস্কের প্রভাব বিবেচনায় মার্কেটস ডটকমের প্রধান বাজার বিশ্লেষক নিল উইলসন মনে করেন, শিগগিরই বিটকয়েনের মূল্য ৫০ হাজার ডলারের রেকর্ড স্পর্শ করতে পারে।

(ডিএফই/১০ ফেব্রুয়ারি, ২০২১)

Short URL: https://biniyougbarta.com/?p=137283

সর্বশেষ খবর